Custom House Pangaon

কাস্টম হাউস, পানগাঁও, ঢাকা


গ্রীন কাস্টমস এর এক নতুন দিগন্ত

গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ০৭ নভেম্বর ২০১৩ তারিখে পানাগাঁও অভ্যান্তরীণ কন্টেইনার টার্মিনাল উদ্ধোধন করেন। পানগাঁও বন্দর উদ্ধোধনের ফলে আমদানি ও রপ্তানি বাণিজ্যে অপার সম্ভাবনার দ্বার উন্মোচিত হয়। ইতোমধ্যে পানগাঁও বন্দরে পণ্য আমদানি উল্লেখযোগ্য পরিমাণে বৃদ্ধি পেয়েছে। সুপরিসর এই নৌ-কন্টেইনার টার্মিনালটি দক্ষিণ কেরাণীগঞ্জে বুড়িগঙ্গা নদীর তীরে অবস্থিত। পানগাঁও বন্দর কর্তৃপক্ষ বন্দর এলাকা থেকে ঢাকা মাওয়া মহাসড়ক পর্যন্ত সুপরিসর পাকা রাস্তা তৈরী করেছেন- যা পণ্য পরিবহনের ক্ষেত্রে ব্যাপক সুবিধার সৃষ্টি করছে।


পানগাঁও বন্দরের বর্ণনা :

  • জেটির দৈর্ঘ্য ১৮০ মিটার (দুটি জাহাজ একবারে তীরে ভিড়তে পারে)।
  • জেটির প্রস্থ ২৬ মিটার।
  • বন্দরের প্রাঙ্গন এলাকা ৩২ একর।
  • ওভারফ্লো ইয়ার্ড এলাকা ৯১০০ বর্গ মিটার।
  • ইয়ার্ডে এককালীন কন্টেইনার ধারণ ক্ষমতা ২৪০০ টিউস (২৪০০ বিশ ফুট কন্টেইনার)।
  • কন্টেইনার ফ্রেইট এলাকা ৫৮১৫ বর্গ মিটার।
  • রেফার প্লাগ ইন পয়েন্ট ৪৮টি।

কাস্টমস সংক্রান্ত সুবিধা :

  • ASYCUDA WORLD CONNECTION স্থাপন করা হয়েছে
  • অত্যন্ত দ্রুততার সাথে আমদানিকৃত পণ্য শুল্কায়ন ও খালাস দেয়া হচ্ছে
  • হয়রানি প্রতিরোধে জিরো টলারেন্স নীতি গ্রহণ করা হয়েছে
  • অামদানিকারক/সিএন্ডএফ এজেন্টগন পণ্য শুল্কায়নের পূ্র্বে পণ্য পরিদর্শন করার সুযোগ পাচ্ছেন
  • পানগাঁও বন্দর কর্তৃপক্ষ আমদানিকৃত পণ্যের সংরক্ষণের জন্য নিচ্ছিদ্র নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করেছেন।

পানগাঁও পোর্ট ব্যবহারের ইতিবাচক দিকসমূহ :

  • পানগাঁও এর পার্শ্ববর্তী ঢাকাস্থ কেরাণীগঞ্জ, ইমামগঞ্জ, চকবাজার, সদরঘাট ও নারায়নগঞ্জস্থ আমদানিকারক ও ব্যবসায়ীগণ সহজেই এ পোর্ট ব্যবহার করে এবং সর্বোচ্চ সেবা প্রাপ্তির সাথে অধিকতর লাভবান হবেন
  • দেশের আর্থ সামাজিক উন্নয়ন ত্বরান্বিত হবে
  • কন্টেইনার পরিবহন হরতাল , অবরোধমুক্ত হবে সড়কপথ মেরামত ও সংরক্ষণ ব্যয় হ্রাস পাবে
  • কন্টেইনার নিরাপদে ও স্বল্প সময়ে পরিবাহিত হবে
  • আধুনিক সুবিধা সম্বলিত সুপ্রশস্ত কন্টেইনার ইয়ার্ড থাকায় কন্টেইনার জটমুক্ত
  • ব্যবসায়ীগণ যথাসময়ে পণ্য আমদানি-রপ্তানি করতে পারবে
  • মহাসড়কে ভারি যানবাহন চলাচল হ্রাস পাবে এবং মহাসড়ক যানজটমুক্ত হবে
  • পরিবহন খরচ অনেক কমে আসবে বিধায় পণ্য মূল্য ক্রয় ক্ষমতার মধ্যে থাকবে
  • ব্যবসা বাণিজ্যে গতিশীলতা আসবে এবং বহির্বিশ্বে দেশের ভাবমূর্তি উন্নত হবে
  • নদীপথে পণ্য পরিবহনের কারণে কার্বন নিঃসরণ হ্রাস পেয়ে পরিবেশ বান্ধব যোগাযোগ স্থাপিত হবে।

কাস্টম হাউজ পাঁনগাও এর কার্যক্রম :

  • রাজস্ব আদায় করা
  • বৈধ বাণিজ্যে সহায়তাকরণ (Trade Facilitation)
  • জনস্বাস্থ্য ও সামাজিক নিরাপত্তা বিধান
  • রাষ্ট্রীয় নিরাপত্তা বিধান
  • বিনিয়োগ-বান্ধব পরিবেশ তৈরি
  • আন্তর্জাতিক জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাস দমন
  • জীব বৈচিত্র সংরক্ষণ ও পরিবেশ সুরক্ষা
  • দেশীয় শিল্পের সুরক্ষা এবং
  • বাণিজ্য তথ্য সংগ্রহ, সংরক্ষণ, বিশ্লেষণ ও গবেষণা